গত পরশু পশ্চিম বাংলার আই এস এফ দলের প্রতিষ্ঠা দিবস উপলক্ষে একটি কলকাতার সমাবেশ ছিল। সেই সমাবেশ কে বানচাল করতে পশ্চিম বাংলার শাসক দলের কিছু নেতা উঠেপড়ে লাগে।

এবং কলকাতা মুখি আই এস এফ নেতা ও কর্মীদের ঠেকাতে মাঠে নামেন ভাঙড় থানার তৃনমূল দলের অন্যতম নেতা আরাবুল ইসলাম ও কাইজার আহমেদ এর মতো নেতারা। কিন্তু এই সমাবেশ অনুষ্ঠিত সফল করতে সবধরনের সহায়তা আগে থেকেই চেয়েছিলেন পশ্চিম বাংলার বিধান সভার সদস্য ও আই এস এফ দলের নেতা ফুরফুরা শরীফের পীরজাদা নওশাদ সিদ্দিকী।

কিন্তু এই সমাবেশে আশা মানুষের আটকে রাখতে খন্ডযুদ্ধ বাধে রাস্তায় রাস্তায়, অবশেষে এই কলকাতা শহরে একটি ঘটনার প্রতিবাদ করতে গিয়ে রাজপথে শাসক দলের নেতা ও কর্মীদের এবং পুলিশের দ্বারা আক্রান্ত হন পীরজাদা নওশাদ সিদ্দিকী ও তার দলের অন্যতম ১৮,নেতা, কর্মী। এবং পরবর্তীতে কলকাতার পুলিশ পশ্চিম বাংলার বিধান সভার সদস্য ও আই এস এফ নেতা কে গ্রেপ্তার করা হয়।

এবং তার জামিন আবেদন নাকচ হয়ে যায়। এর মধ্যে এই ঘটনার পর সারা পশ্চিম বাংলার বিভিন্ন যায়গায় বিক্ষোভ মিছিল বের হয়। এবং আজ পশ্চিম বাংলার ফুরফুরা শরীফের পীরজাদারা সীমান্ত নেন যে অবিলম্বে পীরজাদা নওশাদ সিদ্দিকী কে না ছেড়ে দেওয়া হয় তাহলে আগামী দিনে লক্ষ লক্ষ মানুষ নিয়ে কলকাতার রাজপথে অবরোধ করা হবে বলে জানান ফুরফুরা শরীফের পীরজাদা সামিম সিদ্দিকী ও মেহরাব সিদ্দিকী এবং সানাউল্লাহ সিদ্দিকী সহ অন্যান্য পীরজাদারা।।