খাগড়াছড়ির রামগড় পৌরসভার বল্টুরামটিলা ১নং ওয়ার্ড মদের কারখানার পাশে শ্বশানটিলা নামকস্থানে দীপক চন্দ্র ঘোষ মুন্না (৩৮) নামে এক ব‍্যাক্তিকে পিটিয়ে হত‍্যা করার অভিযোগ উঠেছে তারই আপন শালা সাগর ত্রিপুরা সহ তার বন্ধু আকাঁশ ত্রিপুরা ও রুবেল ত্রিপুরার বিরুদ্ধে, হত‍্যার সন্দেহে সাগর ত্রিপুরাকে রামগড় থানা পুলিশ আটক করেছে।

নিহত দীপক চন্দ্র ঘোষের বাবা রাখাল চন্দ্র ঘোষ জানান, দীপকের সাথে তার স্ত্রীর দীর্ঘ ৩ বছর যাবত পারিবারিক বিভিন্ন সমস্যা চলছে, গত কয়েক মাস পূর্বে উপজেলা চেয়ারম্যান কার্যালয়ে সমস্যা সমাদানের লক্ষ্যে একটি বৈঠক হয়, দীর্ঘদিন সমস্যার কারণে দীপক ও তার স্ত্রী আলাদা থাকছে, তার স্ত্রী চট্টগ্রামে একটি গার্মেন্টস এ চাকরি করছে,বার বার আমরা তাকে আনতে যাই সে আসে না, এক পর্যায়ে তারা দুজনই ডিভোর্স এর সিদ্ধান্ত নিয়েছে, তার পর থেকে দীপকের শালা সাগর ত্রিপুরার( ২২)এর সাথে তার কথা কাটাকাটি হয়, সে সুত্রে সাগর তার কয়েকজন বন্ধু কে সাথে নিয়ে গত কাল রাত আনুমানিক ১১.৫০ ঘটিকায় এলাকার দোকান থেকে দীপক বাসায় যাওয়ার পথে লিচু বাগান এলাকায় দেশীয় অস্ত্র দিয়ে তার মাথায় গুরুতর আঘাত করে, পরে তার চিৎকার শুনে এলাকার মানুষ এগিয়ে আসলে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়, এলাকাবাসীর সহযোগিতায় দীপক কে রামগড় সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসার জন্যে ভর্তি করানো হয়,পরে হাসপাতালে দীপক মারা যায়।

দীপকের বাবা রাখাল চন্দ্র ঘোষ আরো বলেন, আমার ছেলেকে তার স্ত্রী ও শালা পরিকল্পনা করে হত্যা করেছে।
রামগড় থানার উপপরিদর্শক (এসএই) মোহাম্মদ সামছুল হক সুত্রে জানা গেছে, পারিবারিক কলহের জের থেকে এ হত্যার হতে পারে বলে প্রাথমিক তথ‍্যে জানা গেছে , হত্যার সন্দেহে নিহতের শালা সাগর ত্রিপুরাকে আটক করা হয়েছে, লাশ ময়নাতদন্তের জন্যে খাগড়াছড়ি সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তদন্ত চলমান ও মামলা রুজু প্রক্রিয়াধীন।